সুইস ব্যাংকে কালোটাকা পাঠাতে বিদ্যুতের দাম বাড়ছে – রিজভী

সংবাদ শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
নিউজ ডেস্কঃ বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, সুইজারল্যান্ডের সুইস ব্যাংকে কালোটাকা পাঠানোর লক্ষ্যে সরকার বছরে কয়েকবার বিদ্যুৎ-জ্বালানির দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
 
আজ শনিবার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ‘ফিউচার অব বাংলাদেশ’–এর উদ্যোগে বিদ্যুৎ-জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধি–সংক্রান্ত বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন আইন (সংশোধন) বিল সংসদে উত্থাপনের প্রতিবাদে এক মানববন্ধনে রিজভী এসব কথা বলেন।
 
বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, সুইজারল্যান্ডের সুইস ব্যাংকে কালোটাকা পাঠানোর লক্ষ্যে সরকার বছরে কয়েকবার বিদ্যুৎ-জ্বালানির দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
 
আজ শনিবার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ‘ফিউচার অব বাংলাদেশ’–এর উদ্যোগে বিদ্যুৎ-জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধি–সংক্রান্ত বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন আইন (সংশোধন) বিল সংসদে উত্থাপনের প্রতিবাদে এক মানববন্ধনে রিজভী এসব কথা বলেন।
 
সরকার বিদ্যুৎ-জ্বালানি তেলের দাম বাড়িয়ে টাকা আদায় করছে বলে অভিযোগ করে রিজভী বলেন, ‘তাদের (সরকার) টাকা দরকার। এই টাকা কোথায় যাচ্ছে জানেন? এটাও গতকাল বিভিন্ন পত্রিকায় বেরিয়েছে—পাঁচ হাজার কয়েক শ কোটি টাকা সুইস ব্যাংকের জমা আছে। এই টাকা কার? এই টাকা মন্ত্রীদের, এই টাকা আমলাদের, এই টাকা ক্ষমতাসীন দলের লোকদের।’ তিনি আরও বলেন, ‘আজকে ১১ থেকে ১২ বছর জনগণের এই টাকা আত্মসাৎ করে সুইস ব্যাংক ফুলেফেঁপে একেবারে বিশাল মহিরুহে পরিণত করেছে তারা। এখন আরও টাকা দরকার, সুইস ব্যাংকে আরও কালোটাকা পাঠাতে হবে—এই লক্ষ্য নিয়ে বছরে কয়েকবার বিদ্যুৎ-জ্বালানি তেলের দাম তারা বৃদ্ধি করছে।’
 
বিএনপি এই নেতা বলে, অনেকের এবার ভুতুড়ে বিদ্যুতের বিল এসেছে, কিন্তু সরকারের সেদিকে নজর নেই। তিনি আরও বলেন, ‘তারা নির্লজ্জভাবে গায়ের জোরে আবার বছরের কয়েকবার বিদ্যুৎ ও জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি করছে। সিরিঞ্জে করে যেমন রক্ত টান দেয়, এখন এই সরকার জনগণের শরীরে সিরিঞ্জ দিয়ে রক্ত টান দিচ্ছে বিদ্যুৎ-জ্বালানি তেলের দাম বাড়িয়ে। আমরা তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি, সরকার সংসদে বিল উপস্থাপন করেছে।’
 
ঢাকার কয়েকটি হাসপাতাল ছাড়া করোনাভাইরাসের চিকিৎসাব্যবস্থা নেই জানিয়ে রিজভী বলেন, ‘হাসপাতালে গিয়ে করোনা রোগী কোনো চিকিৎসা পাচ্ছে না। কারণ, ওরা জনগণকে সুবিধা দেওয়া, জনগণের কষ্ট লাঘব করার কোনো কাজ তারা করেনি। বাংলাদেশের স্বাস্থ্য খাত ভেঙে গেছে, একেবারে ভঙ্গুর।’
 
বর্তমান পার্লামেন্টকে ‘জো হুকুমের পার্লামেন্ট’ উল্লেখ করে রিজভী বলেন, ‘সরকার মনে করে, আমি যেটা বলব, সেটাই আইন। কেউ কিছু বললে লাল ঘরে পাঠিয়ে দেব, বেশি কথা বোলো না, বেশি কথা বললে আমি একেবারে লাল ঘরে পাঠিয়ে দেব। বিরোধী দল ও বিরোধী মতের জন্য একেবারে পারমানেন্ট করে রেখেছে লাল ঘর, ইটের লাল দেয়ালের মধ্যে বন্দী করে রাখব।’
 
প্রতিবাদ করে যাবেন জানিয়ে রিজভী বলেন, মামলা দিলেও তাঁরা সব সময় প্রস্তুত আছেন।
_____________
সুত্রঃ প্রথম আলো

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *